একটি বিমান ঢাকা থেকে নিউইয়র্ক
যাচ্ছে। নীল আকাশে সাদা মেঘের
ভাজে বিমান
উড়ছে!
এমন সময় বিমানের ইকোনমি ক্লাশের
এক সুন্দরী তরুণী হঠাৎ তার আসন
থেকে উঠে ফার্স্ট ক্লাশের
একটা ফাঁকা সিটে গিয়ে বসে পড়লেন!
তরুণীর এই কান্ড
দেখে বিমানবালা এগিয়ে গিয়ে বললেনঃ ম্যাডাম
আপনি ভুল করছেন! এটা ফার্স্ট ক্লাশ!
আপনার আসন ইকোনমি ক্লাশে।
আপনি দয়া করে সেখানে গিয়ে আসন
গ্রহন করুন!
তরুণী বললেনঃ দেখুন আমি একজন
সুন্দরী তরুণী এবং আমি নিউইয়র্ক
যাব! তাই আমার
ইচ্ছে হয়েছে এখানে বসার! এখান
থেকে আমাকে কউ সরাতে পারবেনা।
অগত্য কোন উপায়
না দেখে বিমানবালা ক্যাপ্টেন আর
কো-
পাইলট এর কাছে নালিশ করলেন।
সব শুনে কো-পাইলট
ব্যাপারটা সামলানোর জন্য সেই
তরুণীর সামনে হাজির হলেন।
কো- পাইলট খুব সুন্দর
করে বুঝিয়ে বললেনঃ দেখুন ম্যাডাম
আপনি ইকোনমি ক্লাশের ভাড়া পরিশোধ
করেছেন! কাজেই আপনার ফার্স্ট
ক্লাশে বসার অধিকার নেই।
আপনি দয়া করে ইকোনমি ক্লাশে গিয়ে বসুন।
কো-পাইলটের
কথা শুনে তরুণী বললোঃ দেখুন
আমি একজন সুন্দরী তরুণী! আর
আমি নিউইয়র্ক যাচ্ছি। আমার
ইচ্ছে হয়েছে এখানে বসার! তাই
আমাকে কেউ এখান
থেকে সরাতে পারবেনা।
এবার কো-পাইলটও ব্যার্থ
হয়ে ককপিটে ফিরে এলো।
ক্যাপ্টেনকে গিয়ে বললোঃ স্যার
তরুণী ম্যালা ঝামেলা পাকাচ্ছে।
ক্যাপ্টেন
বললোঃ আচ্ছা যে তরুণী ঝামেলা পাকাচ্ছে সে কি অনেক
সুন্দরী?
কো-পাইলট বললেনঃ জ্বী স্যার
বেসম্ভব সুন্দরী!
ক্যাপ্টেন
এবারে বললোঃ সে যদি সুন্দরী হয়
তাহলে মনে হয় আমি এই ঝামেলাটার
সমাধান করতে পারবো! কারণ আমি বউ

সুন্দরী! আর আমি তাকে প্রতিদিন
ভালোমতই সামলাতে পারি!
অতঃপর ক্যাপ্টেন ফার্স্ট
ক্লাশে গেলেন এবং সেই
সুন্দরী তরুণীর কানে ফিসফিস
করে কি যেন একটা বলতেই তরুণী সেই
ফার্স্ট ক্লাশের সিট
ছেড়ে উঠে বললেনঃ ওহ! আই এ্যাম
স্যরি!
তারপর নিজের ইকোনমি ক্লাশের
সিটে গিয়ে বসে পড়লেন। এসব
দেখে বিমানবালা আর কো-পাইলট
তো অবাক!
তারা ক্যাপ্টেনকে জিজ্ঞেস
করলেনঃ আপনি সুন্দরীর
কানে কি বললেন যে এভাবে দ্রুত কাজ
হয়ে গেল??
ক্যাপ্টেন মুচকি হেসে বললেনঃ
আমি তাকে বলেছি যে এই বিমানের
ফার্স্ট ক্লাশ নিউইয়র্ক যাবে না! শুধু
মাত্র ইকোনমি ক্লাশ নিউইয়র্ক
যাচ্ছে! আর ফার্স্ট
ক্লাশ যাচ্ছে ডাইরেক্ট
নিউজিল্যান্ডে!🙂